শিলাজিৎ ক্যাপসুল এর কাজ কি এবং কাজ করতে কত সময় লাগে

শিলাজিৎ ক্যাপসুল এর কাজ কি এবং কাজ করতে কত সময় লাগে? 100% best and Genuine.

শিলাজিৎ ক্যাপসুল এর কাজ কি এবং কাজ করতে কত সময় লাগে? সাধারণভাবে, শিলাজিৎ ব্যবহারের ফলাফল দেখতে কিছু সপ্তাহ থেকে কিছু মাসের মধ্যে লাগতে পারে। তবে, এটি ব্যক্তির শারীরিক অবস্থা, স্বাস্থ্যগত সমস্যা এবং অন্যান্য পরামর্শের ভিত্তিতে পরিবর্তন করতে পারে।

এই লেখাটিতে আমরা অনেক প্রশ্নর উত্তর জানবো । যেমন – শিলাজিৎ কি দিয়ে তৈরি হয় ?ekta শিলাজিৎ গাছ? শিলাজিৎ খেলে কি হয়? eti শিলাজিৎ ক্যাপসুল কি কাজ করে? শিলাজিৎ এর কাজ কি? শিলাজিৎ? shilajit benefits in bengali? শিলাজিৎ ক্যাপসুল কোথায় পাওয়া যায়? শিলাজিৎ খাওয়ার নিয়ম কি ?

এই সব প্রশ্নর উত্তর আপনারা এই লেখাটিতে পাবেন।

শিলাজিৎ কি দিয়ে তৈরি হয় ? – একটি প্রাকৃতিকভাবে পাওয়া খনিজ পদার্থ । প্রধানত ভারতের উপমহাদেশের হিমালয় ও হিন্দুকশ পর্বতমালায় পাওয়া যায়। হাজার হাজার বছর গাছ পচন ধরে এই শিলাজিত গঠিত হয়।

শিলাজিতের উপকারিতা কি কি ? শিলাজিৎ ক্যাপসুল এর কাজ কি ?

শিলাজিৎ ক্যাপসুল এর কাজ এবং শিলাজিতের উপকারিতা অনেক রয়েছে। যেমন –

শিলাজিৎ ক্যাপসুল এর কাজ কি এবং কাজ করতে কত সময় লাগে
  • মস্তিষ্কের কোষগুলির বার্ধক্যকে ধীর করে দেয়, জ্ঞানীয় ফাংশনগুলিকে উন্নত করে, যা ফলস্বরূপ আলঝেইমার রোগের লক্ষণগুলিকে প্রতিরোধ করে বা উন্নত করে।
  • হৃদরোগের ঝুঁকি হ্রাস করে কারণ এটি তার অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বৈশিষ্ট্যগুলির জন্য সুপরিচিত যা কোষের স্বাস্থ্যের উন্নতি করে।
  • ডায়াবেটিস রোগীদের স্বাস্থ্যকর রক্তে শর্করার মাত্রা বজায় রাখে ।
  • আয়রনের একটি ভাল উৎস যা শরীরের রক্তর সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।
  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় বলে বিশ্বাস করা হয়।
  • শিলাজিৎ কোষের সংখ্যাবৃদ্ধি রোধ করে লিভারের ক্যান্সার কোষ ধ্বংসের শক্তি কমাতে সাহায্য করে। শিলাজিৎ সেলুলার ফাংশন উন্নত করে এবং শক্তি বাড়ায়।
  • ছেলেদের শুক্রানুর সমস্যা নিয়ন্ত্রণ করে এবং অনেক সময় সহবাস করাত সহায় করে।
  • মেয়েদের মাসিক নিয়ন্ত্রণ করে।
  • শরীরের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।
  • ক্ষত এবং আলছারের চিকিৎসা করে।
  • শারীরিক এবং মানসিক থেকে মুক্তি দেয় ।
  • হাড্ডি মজবুত করে।

কিন্তু মনে শিলাজিত খাওয়ার তার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার সম্পর্কে জানা দরকার। নিচের লেখায় ভালো করে দেওয়া অনুগ্রহ করে দেখে নিন।

শিলাজিতের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কি কি? ekta শিলাজিতের ক্ষতিকর দিক ?

শিলাজিৎ ক্যাপসুল এর কাজ কি এবং কাজ করতে কত সময় লাগে

শিলাজিতের ব্যবহারে কিছু খারাপ দিক রয়েছে। যেমন-

শিলাজিৎ এর উৎসের উপর নির্ভর করে বিভিন্ন খনিজ, ভারী ধাতু এবং অন্যান্য দূষিত বস্তু মিক্স থাকতে পারে।

সেই জন্য আপনাদের শিলাজিত ক্রয় করার আগে ভালো COMPANY দেখে ক্রয় করা একটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

কিছু ব্যক্তির শিলাজিতের উপাদানগুলিতে অ্যালার্জি হতে পারে। যেমন – ত্বকে ফুসকুড়ি, চুলকানি ইত্যাদি।

আপনি যদি অন্য রোগের জন্য ওষুধ গ্রহণ করে থাকেন, তবে এইক্ষেত্রে শরীরের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। তাই শিলাজিত ব্যবহারের আগে একজন স্বাস্থ্যসেবা পেশাদারের সাথে পরামর্শ দেওয়া হল।

আপনার যদি উচ্চ বা নিম্ন রক্তচাপ থাকে, আপনি যদি শিলাজিৎ ব্যবহার করতে চান তবে আপনার রক্তচাপ পর্যবেক্ষণ করা গুরুত্বপূর্ণ।

শিলাজিত খাওয়ায় কিছু লোকের হজমের সমস্যার দেখা দিতে পারে। তাই তাদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীর সাথে পরামর্শ করা উচিত।

শিলাজিৎ ভালো কোম্পানির লিঙ্ক দিলাম।

শিলাজিৎ খাওয়ার নিয়ম কি ?

  • পাওডার -১ চামুচ পাওডার শিলাজিতের সাথে মিক্স করে বা হালকা গরম দুধের সাথে দিনে দুই বার খেতে পারেন।
  • ক্যাপসুল -একটা ক্যাপসুল হালকা গরম দুধের সাথে দিনে দুইবার।
  • কালা শিলাজিতের চাহ – একটি বর্তনে ১.৫ কাপ জল দিন। আধা চামচ চা যোগ করুন এবং ৫ মিনিটের জন্য গরম হতে দিন। তার পর ছেঁকে নিয়ে ১ চামচ শিলাজিৎ পাউডার যোগ করুন। dভালো করে মিশিয়ে সকালে শিলাজিৎ চা পান করুন।

শিলাজিৎ ক্যাপসুল কোথায় পাওয়া যায়?

শিলাজিৎ ক্যাপসুল এর কাজ কি এবং কাজ করতে কত সময় লাগে 1

আপনারা মার্কেটে গেলে অনেক শিলাজিত পাবেন কিন্তু আপানারা ভালো কোম্পানির প্রোডাক্ট বেচে নিন। যেমন – কাপিভা কোম্পানির শিলাজিত খুব ভালো হয়। সাথে হিমালায়া কোম্পানির শিলাজিত ও অনেক ভালো হয়।

আজকাল অনলাইন মার্কেটে, অফলাইন ফার্মেসি, স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্রে অনেক সহজেই পাবেন। কিন্তু মনে রাখতে হবে একটা ভালো কোম্পানির সাথে সাথে সেই World Health Organisation থেকে Permission নেওয়া হতে হবে।

DICLAIMER

এই ওয়েবসাইটের বিষয়বস্তু শুধুমাত্র তথ্যগত উদ্দেশ্যে এবং পেশাদার চিকিৎসা পরামর্শ, রোগ নির্ণয় বা চিকিত্সার বিকল্প হওয়ার উদ্দেশ্যে নয়। চিকিৎসা সংক্রান্ত অবস্থার বিষয়ে আপনার যেকোন প্রশ্ন থাকলে অনুগ্রহ করে একজন চিকিত্সক বা অন্য যোগ্য স্বাস্থ্য প্রদানকারীর পরামর্শ নিন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *